সারাদেশ

কলারোয়ায় হাজী নাছির উদ্দিন কলেজে অধ্যক্ষের দূরর্নীতির বিরুদ্ধে ছাত্র ছাত্রীদের বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

(দেবাশীষ চক্রবত্তী) জয়নগর কলারোয়া –

সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার ছলিমপুরের হাজী নাছির উদ্দিন ডিগ্রি কলেজে অধ্যক্ষ ও শিক্ষকদের  অনিয়ম দূরর্নীতি মুলক কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে  ছাত্র ছাত্রীদের প্রতিবাদ বিক্ষোভ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার  (২৪ শে আগষ্ট) সকাল ১০ টার দিকে  কলেজ গেটের সামনে কলেজের বিভিন্ন শ্রেণী থেকে প্রায় অর্ধশত ছাত্রের উপস্থিতিতে চলমান কলেজ কতৃপক্ষের বিরুদ্ধে সীমাহীন  অনিয়ম দূরর্নীতির বিরুদ্ধে ছাত্র ছাত্রী ও প্রাক্তন ছাত্র সহ এলাকা বাসীদের বিক্ষোভ ও মানব্বন্ধন  সহ পোস্টার মারফত  কয়েক দফা দাবি করতে দেখা গেছে।

ছাত্র ছাত্রীদের দাবির মধ্যে ছিল -প্রশাসনিক স্বচ্ছতা  কলেজের আয় ব্যায়ের সঠিক হিসাব ও দোষীদের বিচারের ব্যাবস্থা করা।অস্বচ্ছল ম্যানেজিং কমিটি বাতিল করা।সঠিক সময়ে শিক্ষকদের উপস্থিতি ও পাঠদান নিশ্চিত করা।অত্র অঞ্চলের প্রাক্তন ছাত্র ছাত্রী ও অভিভাবকদের মূল্যায়ন করা।অত্র অঞ্চলের সম্মানি বেক্তি ও দাতাদের মূল্যায়ন ও মতামতের প্রাধান্য দিতে হবে।পরীক্ষার ফি ও ফ্রমফিলাপের ফি বাড়তি নেওয়া যাবে না। কলেজের সার্বিক উন্নয়নে প্রতিষ্ঠাতাদের অগ্রাধিকার দিতে হবে। কলেজ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ছাত্রদের অন্যতম অভিযোগ হলো কলেজ ক্যাম্পাসে প্রকাশ্যে মাদক সেবন ।

এ ব্যাপারে মানব্বন্ধন কারী  কলেজের ছাত্র রহমতে জনি,মেহেদী হাসান, রায়হান খান সহ আরও অনেকে  বলেন,আমরা কলেজে নানাভাবে লাঞ্ছিত হচ্ছি। অধ্যক্ষের অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলার কারণে আমাদের পেটানো হয়েছে । আরোও নানা ধরনের হুমকি ধামকি দেওয়া হয়েছে। আমাদের পোস্টার ছিড়ে দিয়েছে কলেজ কতৃপক্ষ ।

এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন স্থানীয় ব্যাক্তি বলেন, অধ্যক্ষের নিজের খামখেয়ালির শিকার আমাদের এই হাজী নাছির উদ্দিন ডিগ্রি কলেজ ।বর্তমান ভুতুড়ে ম্যানেজিং কমিটিতে প্রতিষ্ঠাতা পরিবারকে অবমুল্যায়ন করা হয়েছে ।

ছাত্র ছাত্রীদের প্রতিবাদ বিক্ষোভ  মানববন্ধনের বিষয়ে হাজী নাছির উদ্দিন ডিগ্রি   কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল আলিম এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান এগুলো ভিত্তিহীন বানোয়াট, ছাত্র ছাত্রী ও এলাকা বাসীরা আমার ও কলেজের বিরুদ্ধে কালিমা লেপে দেওয়ার চেষ্টা করছে । এটি একটি গভীর ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত। আমি দূরর্নীতি ও ধুমপানের মত জঘন্য কাজকে কোনো ভাবেই প্রশ্রয় দেই না।
তিনি কলেজের প্রতিষ্ঠাতা এনাম হকের উদ্ধৃতি দিয়ে আরোও বলেন,তিনি সভাপতি থাকা কালীন কলেজের সম্পদ লুটেপুটে খেয়েছে ।এখন আর তা পারছেন না বলে তিনি স্থানীয় জনসাধারণ ও কিছু ছাত্রদের উসকানি দিয়ে এই পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছেন ।

Related Articles

Back to top button
Close