বগুড়ার-সংবাদমহাস্থান

গোকুল হত্যার উদ্দ্যেশে মাদরাসার ছাত্রকে ছুরিকাঘাত হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে

মহাস্থান (বগুড়া) প্রতিনিধি: গত শনিবার দিবাগত রাত ৮ টায় বগুড়া সদর উপজেলা গোকুল ইউনিয়নের ধাওয়াকোলা গ্রামের মাদরাসা ছাত্র এক বালককে হত্যার উ্েদ্দশ্যে ডেকে নিয়ে গিয়ে চুরিকাঘাত করেছে। সে এখন হাসপাতালে বেডে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। বিচারের বাণী নিরবে কাঁদছে। জানা যায়, বগুড়া সদরের গোকুল ইউনিয়নের ধাওকাকোলা নামাপাড়া গ্রামের মোকলেসার রহমানের কনিষ্ঠপুত্র মহাস্থান আলিম মাদরাসাদর নবম শ্রেণিল ছাত্র রাকিবুল হাসান (১৫)। গত শনিবার বিকেলে মহাস্থান হাটে একটি ছাগল কিনতে য্য়া। সূর্য ডোবার আগেই রাকিকের পরিচিত দুই বন্ধু তাকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর রাকিবকে নিয়ে বগুড়া সদরের গোকুল তেলিহারা রাস্তার নদীর কিনারায় নিয়ে যায়। এরপর রাকিবে নিয়ে সময় কাটাতে থাকে বলে রাকিব সাংবাদিককে জানায়। এরপর আনুমানিক রাত ৮ টা রাকিবের গলায় ছুরিকাঘাত করে ডেকে নিয়ে আসা বন্ধুরা। গতকাল রবিবার বগুড়ায় ঠেঙ্গামার রফাতুল­া কমিউনিটি হাসপাতালের ছয়তলায় বেডে শুয়ে লোম হর্ষকর বর্ণনা দিচ্ছীল বালক রাকিব। সে আরো জানান, ওরা যখন ছুড়িকাঘাত চালাচ্ছিল এবং আমাকে ফেলে দিয়ে বিভিন্ন জায়ড়গায় ছুড়ি চালাচ্ছিল কিন্তু কাটাচ্ছিলাম আর ক্যাকুতি মিনতি করছিলাম। আমাকে মেরে ফেলিস না ভাই আমার মোবাইল সহ টাকা পয়সা যা আছে নে ভাই! তখন ওরা বলে সব তো নেবেই তার পরেও তোকে খুন করে নদীতে ফেলে দিয়ে ক্যাডারের খাতায় নাম বসাবে। এরপর রাকিব সব শক্তি দিয়ে নব্য খুনিদের ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে নদীতে ধাপ দিয়ে সাতরীয়ে তেলিহারা গ্রামে দৌড়ে গিয়ে ওঠে। এরপর এলাকাবাসী রাকিবকে মোটর সাইকলে করে হাসপাতালে ভর্তি করে দেন। এরা কে জানতে চাইলে রাকিব জানায়, একজন ইন্টারে আর একজন নবম শ্রেনিতে স্কুলে। রাকিবরা দুই ভাই দুই বোন। রাকিব সবার ছোট, একমাত্র বড় ভাই রতন ইন্টার ডিষ্টিক ট্রাক ড্রাইভার। এব্যাপারে রাকিবের বড় ভাই রতনের সাথে মোবাইলে কথা বললে তিনি অতি কষ্টে জানান, আমি এখন ট্রাক নিয়ে চট্রগ্রাম দীঘদিন ধরে আমাদের পরিবারের উপর জুলুম চলছে, আহনের আশ্রায় নিয়েছি সঠিক কোন বিচার পাইনি। শেষ পর্যন্ত একমাত্র ছোট ভাইটি আমার হাসপাতালে বেডে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। রতন জানায়, যদিও বিচারের বাণী নিরবে কাঁদে তবুও ভাই ব্যাপরের আইনের আশ্রায় নেবেন বলে চট্রগ্রাম থেকে জানায়

Related Articles

Back to top button
Close