সারাদেশ

ঠাকুরগাঁওয়ে ট্যাক্স আদায়ের নামে হতদরিদ্রদের কাছ থেকে টাকা আদায়

মোঃ শাহিন আলম রুহিয়া, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি ।। খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির আওতায় ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রুহিয়া থানার ১নং রুহিয়া ইউনিয়নে হতদরিদ্রদের মাঝে কার্ড দেওয়ার নামে সেলামী আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। আর কার্ড দেওয়ার নাম করে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও মেম্বারগণ প্রায় লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।
ঠাকুরগাঁও খাদ্য বিভাগের আওতায় সদর উপজেলার ১নং রুহিয়া ইউনিয়নে ১ হাজার ৯৯ জনকে হত দরিদ্র নির্বাচন করে কার্ড প্রদানের নির্দেশনা ছিল। কিন্তু ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত মেম্বারদের মতামত তোয়াক্কা না করে কতিপয় দলীয় কর্মীর মাধ্যমে কার্ড বিতরণ করেন। এদিকে হতদরিদ্র এসব মানুষের কাছে মাথাপিছু ১০০ টাকা হিসেবে আদায়ের অভিযোগ রয়েছে। ঘনিমহেশপুর গ্রামের হতদরিদ্র কার্ডধারী রশিদা বেগম জানান,গরীব মানুষ।আমি কার্ডের বিনিময়ে ১০০ টাকা দিতে অস্বীকার করলে আমার কার্ড বাতিল করে দেবে বলে হুমকি দেয়। একই অভিযোগ করেন একই গ্রামের করিম উদ্দীন। তিনি বলেন ,পার্শ্ববর্তী উপজেলা আটোয়ারীতে কারো কাছে টাকা নেওয়া হয়নি। কিন্তু একমাত্র রুহিয়া ইউনিয়নে মাথাপিছু ১০০ টাকা করে আদায় করা হয়েছে।
ঘনিবিষ্টপুর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক তসলিম উদ্দীন জানান জানান,রুহিয়া ইউনিয়নে ১ হাজার ৯৯টি কার্ডের বিপরীতে হতদরিদ্রদের কাছ থেকে ১শ টাকা হিসেবে এক লাখ ৯ হাজার নয়শত টাকা আদায় করা হয়েছে অবৈধভাবে। এ ব্যাপারে রুহিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল হক বাবু হতদরিদ্রদের কাছে টাকা আদায়ের অভিযোগ স্বীকার করে বলেন,এ ইউনিয়নে ট্যাক্স আদায়ের গতি অত্যন্ত ধীরগতির।মানুষজন ট্যাক্স দিতে চায়না। তাই কার্ড দেওয়ার সময় ১শ টাকা হারে চকিদারী ট্যাক্স আদায় করা হয়েছে। আদায়কৃত অর্থ সরকারি কোষাগারে জমা করা হবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক হাফিজ উদ্দীন জানান,সরকার হতদরিদ্রদের সহযোগিতা করতে ৩০ টাকা কেজির চাল ১০ টাকায় প্রদান করছে।কাজেই তাদের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার প্রশ্নই ওঠেনা। কোন চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে টাকা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button
Close