সারাদেশ

দিনাজপুরে নিখোঁজ ১৩ জনের তথ্য পুলিশ সদর দপ্তরে ঃ

এম এ হক, দিনাজপুর প্রতিনিধি। দিনাজপুর জেলার ১৩ উপজেলার মধ্যে ৩টি উপজেলায় ১৩ জন নিখোঁজ হওয়ায় তাদের সন্ধানে নেমেছে পুলিশ। গত দেড় বছরের মধ্যে এদের একজন ছাড়া সবার পরিবারের পক্ষ থেকে তাদের সন্ধান চাওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট থানায় জিডি করা হয়। কিন্তু নিখোঁজের পর পরই পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় জিডি করা হলেও পুলিশ তখন বিষয়টি আমলে নেয়নি। সম্প্রতি দেশে জঙ্গি হামলার ঘটনায় এখন নিখোঁজদের তথ্য উদ্ধার ও সন্ধানে নেমেছে পুলিশ।

দিনাজপুর জেলা পুলিশের কর্মকর্তা মোঃ সিরাজুল ইসলাম জানান, নিখোঁজদের মধ্যে ঘোড়াঘাট উপজেলার ১০ জন, খানসামায় ২জন ও চিরিরবন্দরের ১জন রয়েছে। তাদের মধ্যে চিরিরবন্দর উপজেলার তেঁতুলিয়া গ্রামের সাহাপাড়ার আনারুল হক (২২) ৩ বছর আগে বাড়ী থেকে পালিয়ে যায় বলে তার পরিবার থেকে জানানো হয়েছে। অন্যদের সবার পরিবার সংশ্লিষ্ট থানায় জিডি করলেও আনারুলের বিষয়ে থানায় আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়নি।

তিনি আরো জানান, কুরআনের হাফেজ হওয়ার পর আনারুল বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। গত বছর একবার বাড়ি ফিরে ১৮/২০ দিন থাকলেও এরপর আবার নিখোঁজ হন। ঘোড়াঘাটের নিখোঁজ ১০ জন হলেন- সাহেবগঞ্জ মাজারপাড়া গ্রামের সাইদুর রহমান(২২), কশিগাড়ী গ্রামের তরিকুল ইসলাম (১২), একই গ্রামের আখতারুল ইসলাম (২৮) শ্যামপুর পূর্ব কলেজপাড়ার সুজন চন্দ্র (১৯), ঋষিঘাট গ্রামের সামিউল ইসলাম (২৭), পশ্চিম পালশা গ্রামের ইব্রাহিম (২০), নন্দনপুর গ্রামের আব্দুল হাদি (১৯), চেচুড়া গ্রামের আমজাদ হোসেন (২৭), কলাবাড়ী গ্রামের সারওয়ার হোসেন (২৫) ও পালোগাড়ী গ্রামের আবুল কাশেম (২৮)।

তাদের সন্ধান চেয়ে ২০১৫ সালের জানুয়ারি থেকে অক্টোবরের মধ্যে পরিবারের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট থানায় পৃথক ৩টি জিডি করা হয় বলে ওই কর্মকর্তা জানান। খানসামা উপজেলার নিখোঁজ ২জনের মধ্যে রয়েছেন গোয়ালডিহি গ্রামের সাদ্দাম হোসেন (২১) ও গোবিন্দপুর হলদিপাড়ার আশরাফুল আলম (২৪)। তাদের সন্ধান চেয়ে চলতি বছর ১১ ও ১৮ জুলাই থানায় জিডি করা হয়। নিখোঁজ ১৩ জনের তথ্য পুলিশ সদর দপ্তরে পাঠানো হয়েছে। কোনো ধরনের জঙ্গি বা নাশকতামূলক কর্মকান্ডের সঙ্গে তাদের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

Related Articles

Back to top button
Close