সারাদেশ

পুলিশের অপকর্ম দেখে ভিডিও করায় সাংবাদিকের নামে মিথ্যা মামলা

মিঠুন সরকার,ঝিকরগাছা(যশোর) প্রতিনিধি :
সাংবাদিকদের সমাজের দর্পন তথা জাতির বিবেক হিসাবে আখ্যায়িত করা হলেও কিছু দুর্নীতিবাজ পুলিশের নিগ্রহের শিকার হয়ে পেশাগত দায়িত্ব পালনে হুমকির মুখে পড়তে হচ্ছে সাংবাদিকদের ।
স্বচ্ছতার সাথে পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে পুলিশের মিথ্যা মামলার শিকার হচ্ছেন অনেক সাংবাদিকরাই । এমনি ঘটনা ঘটেছে শেরপুর জেলার নলিতাবাড়ি থানায় ।
শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ীর থানার এস আই সুমন ,এস আই বকুল ও এস আই আশিক ,শামছুল হক নামের এক ব্যাক্তিকে অন্যায়ভাবে হ্যান্ডকাপ লাগিয়ে ১লাখ ৩০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে “চ্যালেল এস” এর “উন্নয়নের আলোকিত বাংলাদেশ” অনুষ্ঠানের সাংবাদিক জয়রাফি ও ক্যামেরাপার্সন ওয়াসিম রানা সেখানে উপস্থিত হয়ে গোপনে ভিডিও ধারণ করতে থাকেন ।ভিডিও ধারণ শেষে সাংবাদিক জয়রাফি পুলিশের কাছে ওই ব্যাক্তিকে আটকের কারণ জানতে চায় তখন উত্তর দেয়া হয় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হ্যান্ডকাপ লাগানো হয়েছে ।

তখন জয়রাফি জানতে চান হ্যান্ডকাপ লাগিয়ে কেউ জিজ্ঞাসাবাদ করে কিনা ? এমন প্রশ্নে পুলিশ সদস্যরা তাদের পরিচয় এবং আইডি কার্ড দেখতে চান । সাংবাদিক পরিচয় দেয়ার পর তিন পুলিশ সদস্য সাংবাদিকদের ক্যামেরা ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে নিজেদের ব্যাচ খুলে ওই স্থান ত্যাগ করেন ।
পরে রাত ৪ টায় থানার সমস্ত পুলিশ কর্মকর্তা সাংবাদিক জয়রাফি ও সাংবাদিক ওয়াসিম রানা কে আটক করে থানায় নিয়ে যান।অপরাধ জানতে চাইলে বলেন এসপি স্যারের নির্দেশ থানায় যেতে হবে ।
থানায় নেওয়ার পর তাদের কাছে ওই ভিডিও চাওয়া হয় এবং উত্তরে জয়রাফি বলেন ভিডিও হেড অফিসে চলে গেছে ।
এতে পুলিশ সদস্যরা তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন এবং বিভিন্নভাবে হুমকি দিতে থাকেন । এক পর্যায়ে তাদের নামে মিথ্যা পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে মামলা করা হয় ।

এবিষয় নিয়ে চ্যানেল এস এর উন্নয়নে আলোকিত টিমের সাংবাদিক জয়রাফি বলেন, “আমরা দেশের ৩০০ টি আসনে বর্তমান সরকারের উন্নয়নমূলক তথ্য চিত্র তুলে ধরি,দেশকে বিশ্ব দরবারে পরিচিত করিয়ে দেই,আর আমাদেরকেই যদি মিথ্যা মামলার মুখোমুখি হতে হয় তাহলে সাংবাদিকতা নামক মহৎপেশা হুমকির মুখে পড়বে। এব্যাপারে আমি দেশের সকল সংবাদ মাধ্যম,সাংবাদিক,মন্ত্রী,প্রধান মন্ত্রী সহ দেশবাসীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি ।

Related Articles

Back to top button
Close