সারাদেশ

বখাটের ছুরিকাঘাতে তানজিনার মৃত্যুতে “পুরো পরিবারটি ডুবে আছে শোকের সাগরে”

মোঃ আব্দুল কাদের জিলানী ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি॥
বখাটের ছুরিকাঘাতে তানজিনার(২৪) মৃত্যুতে
“পুরো পরিবারটি ডুবে আছে শোকের সাগরে। বাবা-
মায়ের চার সন্তারে মধ্যে আদরের ছোট মেয়ে তানজিনা।
প্রতিদিন সকাল হলেই পুরো বাড়িটি যেন মাতিয়ে
তুলতো সে। সকলকে নিয়ে হাসি-ঠাট্টা, মজা করতো।
বখাটের ছুরিঘাতে তানজিনার মৃত্যুতে যেন একেবারেই
নিরব হয়ে পড়েছে পুরো পরিবারটি। অকালে বুকের ধন
হারিয়ে দিশেহারা তার বাবা-মা। আজ পুরো পরিবারটি
যেন ডুবে আছে শোকের সাগরে। কান্না যেন থামছেনা
কিছুতেই তাদের। ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার সালন্দর
ইউনিয়নের মাদ্রাসার পাড়ায় নিহত তানজিনার বাসায়
গেলে ঠিক এমনি চিত্রটি চোখে পড়ে। নিহত তানজিনা
হামিদ আলীর ছোট মেয়ে সে গ্রামীচক্ষু হাসপাতালের
একজন নার্স। অল্প কিছুদিন হলো তার চাকরী করার। স্বপ্ন
ছিলো অনেক বড় ডাক্তার হবে সে। কিন্তু সেই স্বপ্ন যেন
স্বপ্নই রয়ে গেল তানজিনার।
জানাগেছে, ২০ জুন সকালে সেই একই ভাবে বাবা-মা
পরিবারের সকলের সাথে আনন্দ করে বেরিয়ে পরে নিজ
কর্মস্থলে। হঠাৎ পিছন থেকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে
এলোপাথারি কোপাতে শুরু করে প্রতিবেশী ভাতিজা
জীবন। কারন একটাই! শুধুমাত্র জীবনকে করেছিলো শ^াসন। যার কারনেই আজ প্রাণ দিতে হলো তানজিনাকে।
এরপরে এলাকাবাসী মমূর্ষ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে
ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে।
সেদিন রাতেই এই ঘটনায় জড়িত অভিযুক্ত আসামী
জীবনকে আটক করে ঠাকুরগাঁও পুলিশ।
ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতলে সাময়িক চিকিৎসার পরে
রংপুরে পাঠানো হয় তানজিনাকে। দিনের পর দিন অবস্থার
অবনতি হলে অবশেষে ২৭ জুন সকালে রংপুর মেডিকেল
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নি:শ^াস ত্যাগ
করেন তানজিনা।
অপরদিকে নিহত তানজিনার বাবাকে আর্থিক সহায়তা
প্রদান করেছেন ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ড. কে এম
কামরুজ্জামান সেলিম।

Related Articles

Back to top button
Close