বগুড়ার-সংবাদশিবগঞ্জ

বগুড়ায় পরীক্ষা দিয়ে ফেরার পথে ছুরিকাঘাতে প্রাণ হারালো এইচএসসি পরীক্ষার্থী:আটক ১

ইসতিয়াক আপন, শিবগঞ্জ সংবাদদাতা :
বগুড়ায় পরীক্ষা দিয়ে ফেরার পথে দূর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্র এইচএসসি পরীক্ষার্থী নাজিউর রহমান নাহিদ (১৯) নামের এক কলেজ ছাত্রের খুনের ঘটনা ঘটেছে।
শনিবার (২৭ এপ্রিল) দুপুর ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জনতা কর্তৃক একজন আটক করে পুলিশে দিয়েছে।
নিহত নাহিদ সে শাজাহানপুর উপজেলার নারিল্লা গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে।
পুলিশ জানিয়েছে, শাজাহানপুর উপজেলার ঘাসিরা এলাকায় কয়েক জন দূর্বৃত্তরা নাহিদের মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে ছুরিকাঘাত করে। এতে তার প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। সঙ্গে সঙ্গে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক নাহিদকে মৃত ঘোষণা করেন। নাহিদ উপজেলার ডেমাজানি কলেজ থেকে দুপুর ১টায় পরীক্ষা দিয়ে বন্ধু জাকিরুলকে নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন।
ঘটনার পরপরই স্থানীয় জনগণ রবিউল ইসলাম নামের এক যুবককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।
নিহত নাহিদের বড় ভাই নাসিবুর রহমান বলেন, শনিবার সরকারি ডেমাজানী কমর উদ্দিন কলেজে পরীক্ষা কেন্দ্রে রসায়ন দ্বিতীয়পত্র পরীক্ষা দিতে যায় নাহিদ। পরীক্ষা শেষে দুপুরে এক বন্ধুর সঙ্গে মোটরসাইকেলে করে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে ঘাসিড়া নামকস্থানে কয়েকজন দুর্বৃত্ত তার পথ আটকিয়ে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে।
নাসিবুর দাবি করেন, সম্প্রতি তাদের এলাকায় একটি প্রেমঘটিত বিষয় নিয়ে বিরোধ দেখা দেয়। ওই ঘটনায় সালিশ-বৈঠকও হয়েছে। বৈঠকে বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়ায় প্রতিপক্ষের লোকজন নাহিদকে হত্যা করেছে।
নাজিউর রহমান নাহিদ শাজাহানপুর উপজেলার নারিল্লা গ্রামের মতিউর মাষ্টারের ছেলে।
শাজাহানপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানান, পরীক্ষা দিয়ে এক বন্ধুর সঙ্গে ফেরার পথে তাকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়েছে। তার মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে বন্ধুদের সঙ্গে বিরোধের কারণে এই হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়েছে।
ঘটনার পর রবিউল ইসলাম(২০) নামের এক যুবককে আটক করা হয়েছে। আটক রবিউল উপজেলার মোস্তাইল গ্রামের ইসমাইল হোসেনের ছেলে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে হত্যাকান্ডের রহস্য জানা সম্ভব হবে।
Attachments area

Related Articles

Back to top button
Close