সারাদেশ

রুহিয়ায় অনিতা হত্যা মামলার পলাতক আসামী গ্রেফতার

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি\ ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রুহিয়া থানার ঘনিমহেষপুর মিশন পাড়া মহল্লার বাবলু ঘোষের স্ত্রী অনিতা রানী ঘোষ (৩৮) হত্যা মামলার প্রধান আসামী জাহাঙ্গীর আলম(৫০) গ্রেফতার করেছে রুহিয়া থানা পুলিশ। বুধবার ভোরে রুহিয়া থানা পুলিশ তাঁকে পার্শ¦বর্তী আটোয়ারী উপজেলার তোড়েয়া ইউনিয়নের ডুহা পাড়া গ্রাম থেকে গ্রফতার করেছে।

পুলিশ জানায় ঠাকুরগাঁও সদর উপজেরার রুহিয়া থানার ঘনিমহেষপুর মিশন পাড়া মহল্লার শীলপাটা ব্যাবসায়ী বাবলু ঘোষের সঙ্গে প্রতিবেশী সাবেক ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর আলমের মধ্যে জমিজমা সংক্রান্ত বিষয়ে বিরোধ চলছিল। বাবলু ঘোষের বাড়ির সম্মুক্ষে অংশে জাহাঙ্গীর তাঁর ২য় স্ত্রী লিলি বেগম কে নিয়ে সেখানে বসবাস করে আসছিল। গত বছরের ৫ নভেম্বর সকালে জমিজমা সংক্রান্ত জেরধরে নিহত অনিতা রানী ঘোষ এবং আসামী লিলি বেগমর মধ্যে বাকবিতন্ডা শুরুহয়।

খবর পেয়ে সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে জাহাঙ্গীর বাঁশের লাঠি দিয়ে অনিত রানীর মাথায় সজোরে আঘাত করলে অনিতা রানী মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। প্রত্যক্ষ দর্শীরা তাঁকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করে। পর দিন রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় ৭নভেম্বর ভোর সাড়ে ৫ টায় অনিতার মৃত্যু হয়। এ ব্যাপারে অনিতা ঘোষের স্বামী বাবলু ঘোষ বাদি হয়ে জাহাঙ্গীর আলম ও তাঁর স্ত্রী লিলি বেগম কে আসামী করে রুহিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এ দিকে র্দীঘ দিন পলাতক থাকার পর ৪সেপ্টম্বর (বুধবার) ভোরে পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত)বাবলু কুমার রায় বলেন, আসামী জাহাঙ্গীর আলম ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছেন।

তিনি ঘনঘন জায়গা ও মোবইলের সিম কার্ড পরিবর্তন করায় তাঁকে সনাক্ত করা যাচ্ছিলনা। অবশেষে তিনি পঞ্চগড়রের আটোয়ারী উপজেলার তোড়েয়া ইউনিয়নের ডুহা পাড়া গ্রামের অটো চালক আনিসুরের বাড়িতে তিন দিন পূর্বে আশ্রয় নিলে অবশেষে তাঁকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হই।

Related Articles

Back to top button
Close