বগুড়ার-সংবাদশিবগঞ্জ

শিবগঞ্জে অভিনব কায়দায় বিকাশ থেকে টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারক চক্র

শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার পানের দোকানদার মতিয়ার ও মেহেদুল ইসলামের বিকাশ একাউন্ট থেকে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারক চক্র। সে হাজরাবাড়ী গ্রামের জামিল উদ্দিনের ছেলে।

ভুক্তভোগী মতিয়ার জানায়, তার চাচাত ভাই ওসমান ঢাকা থেকে গত বৃহস্পতিবার কুরবানি কেনার জন্য তার বিকাশ একাউন্টে ১৫ হাজার টাকা পাঠায়। গত রবিবার সকাল ১১ টায় ০১৭৯২-৪৮১৯২৮ নম্বর থেকে একটি কল আসে। ফোনটি রিসিভ করার পর অপর পক্ষ থেকে আমাকে জানায়, বিকাশ একাউন্ট থেকে আপনার টাকা উত্তোলনের সময় প্রতি হাজারে ১৮ টাকা করে কাটে। আমি একটি পিন নম্বর দিচ্ছি, এই নম্বরে ক্লিক করলে প্রতি হাজারে ৯ টাকা করে কাটবে। সহজ সরল পানের দোকানদার মতিয়ার সেই নম্বরে ক্লিক করে এবং তারপর বলে যদি আপনি ব্যবসা করতে চান তাহলে আপনার নম্বরে ১ লক্ষ টাকা দেওয়া হলো, যার কোন সুধ লাগবে না। এখন আপনি আপনার বিকাশ থেকে ১ হাজার টাকা পাঠিয়ে দেন, যা বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা হবে। এতে মতিয়ারের সন্দেহ হয় এবং বলে ভাই আমার আশেপাশে কোন বিকাশ কেন্দ্র নাই, আমি আপনাকে মরে টাকা পাঠিয়ে দিচ্ছি। এরপর মতিয়ার শিবগঞ্জে নিকটস্থ বিকাশ একাউন্টে গিয়ে তার একাউন্ট চেক করে দেখেন সেখানে একটি টাকাও নাই। পানের দোকানদার মতিয়ার বলেন, এখন আমি এই ১৫ হাজার টাকা আমার ভাইকে কিভাবে পূরণ করে দিব। এই টাকা পূরণ করতে গেলে আমার দোকানের সমস্ত মাল বিক্রি করে টাকা পরিশোধ করতে হবে। তিনি আরো বলেন, আমি এব্যাপারে শিবগঞ্জ কাস্টমার কেয়ারে ফোন করলে তারা আমাকে জানায়Ñ ভাই আমাদের করার কিছুই নাই। এদিকে পৌর এলাকার বানাইল গ্রামের মৃত মোসলেম উদ্দিনের পুত্র মেহেদুল ইসলামের কাছ থেকে ভুয়া এস.এম.এস দিয়ে বলে যে, আপনার নম্বরে ভুল করে আমার টাকা গেছে। আপনি এই নম্বরে দয়া করে টাকাটা পাঠিয়ে দেন। নাহলে এই পিন নম্বরে ক্লিক করুন। পরে ঐনম্বরে ক্লিক করলে তার কিছুক্ষণ পর দেখে তার বেলেন্স থেকে ৫ হাজার টাকা উধাও। ভুক্তভোগীরা বলেন, আমাদের মত এরকম প্রতারিত কেউ না হয় সেজন্য কর্তৃপক্ষকে আবেদন জানাচ্ছি।

Related Articles

Back to top button
Close