বগুড়ার-সংবাদশিবগঞ্জ

শিবগঞ্জে যৌতুকের দাবীতে গর্ভবতী স্ত্রীর পেটে লাথি, থানায় অভিযোগ

শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়া শিবগঞ্জ উপজেলার যৌতুকের দাবীতে গর্ভবতী স্ত্রীর পেটে লাথি মারার খবর পাওয়া
যায়। এব্যাপারে শিবগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, শিবগঞ্জ
মোকামতলা ইউনিয়নের জাবারীপুর গ্রামে সাজু মিয়ার মেয়ে শারমিন আক্তারের (১৯) সাথে একই গ্রামের ওবায়দুল
ইসলামের ছেলে সাগর মোল্লার (২২) সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। বিয়েতে মেয়ের বাবা তার সাধ্যমত জামাইকে
উপঢৌকন ও নগদ ৫০ হাজার টাকা প্রদান করে যেন তার মেয়ে সুখে ও শান্তিতে সংসার করতে পারে। কিন্তু সুখ তার
মেয়ের কপালে সয়নি। বিয়ের কয়েক মাস পর হতে যৌতুকলোভী সাগর মোল্লা ও তার পরিবারের লোকজন আবারো
যৌতুকের জন্য লোভে নির্যাতন শুরু করে। মেয়ে তার সুখের কথা চিন্তা করে স্বামীসহ শশুড়বাড়ীর লোকজনের
নির্যাতন সহ্য করে। এমতাবস্থায় গত বুধবার স্বামী সাগর মোল্লা, তার বাবা-মা ও তার চাচা সিরাজুল ইসলাম
তাকে যৌতুকের জন্য মারপিট করতে থাকে। মার সহ্য করতে না পেরে আত্মরক্ষা করার জন্য মেয়ে পাশ্ববর্তী তার বাবার
বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেয়। মেয়ের বাবার বাড়িতে গিয়েও মেয়ের বাবা-মা ও স্ত্রীকে যৌতুকলোভী সাগর
মোল্লাগং তার লোকজন নিয়ে হামলা চালায়। একপর্যায়ে সাগর মোল্লা তার গর্ভবতী স্ত্রীর পেটের সন্তান নষ্ঠ করার
উদ্দেশ্য পেটে লাথি মারলে সে মাটিতে লুটিয়ে পরে এবং রক্তপাত শুরু হয়। পরে মেয়ের বাবা মা ও নিকট আত্মীয়স্বজন
মেয়েকে দ্রুত চিকিৎসার জন্য শিবগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ
মিজানুর রহমান বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।শিবগঞ্জে যৌতুকের দাবীতে গর্ভবতী স্ত্রীর
পেটে লাথি, থানায় অভিযোগ
শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়া শিবগঞ্জ উপজেলার যৌতুকের দাবীতে গর্ভবতী স্ত্রীর পেটে লাথি মারার খবর পাওয়া
যায়। এব্যাপারে শিবগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, শিবগঞ্জ
মোকামতলা ইউনিয়নের জাবারীপুর গ্রামে সাজু মিয়ার মেয়ে শারমিন আক্তারের (১৯) সাথে একই গ্রামের ওবায়দুল
ইসলামের ছেলে সাগর মোল্লার (২২) সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। বিয়েতে মেয়ের বাবা তার সাধ্যমত জামাইকে
উপঢৌকন ও নগদ ৫০ হাজার টাকা প্রদান করে যেন তার মেয়ে সুখে ও শান্তিতে সংসার করতে পারে। কিন্তু সুখ তার
মেয়ের কপালে সয়নি। বিয়ের কয়েক মাস পর হতে যৌতুকলোভী সাগর মোল্লা ও তার পরিবারের লোকজন আবারো
যৌতুকের জন্য লোভে নির্যাতন শুরু করে। মেয়ে তার সুখের কথা চিন্তা করে স্বামীসহ শশুড়বাড়ীর লোকজনের
নির্যাতন সহ্য করে। এমতাবস্থায় গত বুধবার স্বামী সাগর মোল্লা, তার বাবা-মা ও তার চাচা সিরাজুল ইসলাম
তাকে যৌতুকের জন্য মারপিট করতে থাকে। মার সহ্য করতে না পেরে আত্মরক্ষা করার জন্য মেয়ে পাশ্ববর্তী তার বাবার
বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেয়। মেয়ের বাবার বাড়িতে গিয়েও মেয়ের বাবা-মা ও স্ত্রীকে যৌতুকলোভী সাগর
মোল্লাগং তার লোকজন নিয়ে হামলা চালায়। একপর্যায়ে সাগর মোল্লা তার গর্ভবতী স্ত্রীর পেটের সন্তান নষ্ঠ করার
উদ্দেশ্য পেটে লাথি মারলে সে মাটিতে লুটিয়ে পরে এবং রক্তপাত শুরু হয়। পরে মেয়ের বাবা মা ও নিকট আত্মীয়স্বজন
মেয়েকে দ্রুত চিকিৎসার জন্য শিবগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ
মিজানুর রহমান বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close