সারাদেশ

সাতক্ষীরার কলারোয়া পৌরসভার গুরুত্বপূর্ণ স্থান ডাস্টবিন

সাজমিন সাথীঃ সাতক্ষিরা জেলার কলারোয়া পৌরসভার অতি গুরুত্বপূর্ণ স্থান ময়লার ডাস্টবিন হিসাবে ব্যবহার করার অভিযোগ উঠেছে কলারোয়া পৌরসভার বিরুদ্ধে।
কলারোয়ার প্রান কেন্দ্রে অবস্থিত সদ্য সরকারী জিকেএমকে পাইলট উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রবেশ পথের সাথেই উন্মুক্ত স্হানে বসানো হয়েছে কলারোয়া পৌরসভা দক্ষিণ এর ময়লা ফেলার ট্রানজিট ক্যাম্প,এবং উত্তরের ট্রানজিট বসানো হয়েছে কলারোয়া উপজেলা ভবন সংলগ্ন ও বাস স্ট্যান্ড পোষ্ট অফিসের সামনেই। ঠিক যেন পরিকল্পিত ভাবেই বসানো হয়েছে যশোর- সাতক্ষীরা মেইন রোডের সাথেই এই অতি দূর্গন্ধযুক্ত ময়লার স্তুুপ। সারাদিন সারারাত ব্যাপী কাঁচা বাজার, হোটেল রেস্তোরার পাশে ফেলা বিভিন্ন বর্জ্য ও ময়লা আবর্জনা গুলো ভোররাতেই এনে জমা করা হয় এই দুটি পয়েন্টে। আর এখান থেকেই পৌর সভার সুযোগ সময়ে গাড়িতে করে অন্যত্র পাঠানো হয়। স্কুলের ছাত্র ছাত্রীরা জানিয়েছে এই ময়লা অন্যত্র সরানো হলেও দূর্গন্ধ সারাদিনই থাকে ফলে টিফিনের খাবার খেতে কেমন যেন অস্বস্তি লাগে। স্বল্পোন্নত কলারোয়া পৌরসভার উন্নয়ন চোখে পড়ার মত না হলেও বাহিরের জেলা থেকে আগত অতিথিরা সহজেই অনুমান করতে পারে কলারোয়ার জনগনের জীবন যাত্রার মান ও উন্নয়ন সম্পর্কে। কলারোয়ার পথচারী, সাধারণ জনগনের কথা না ভাবলেও কমল মতি ছোট শিশু ছাত্র ছাত্রীদের স্বাস্থ্য ও সরকারী বিদ্যালয়ের পরিবেশ রক্ষার জন্য সবিনয় অনুরোধ জানিয়েছেন সচেতন জনগন ও অভিভাবকগন। কলারোয়া উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার পৌর সভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র সহ কর্তা ব্যক্তিদের কাছে জোর দাবি জানিয়েছেন তারা। এই স্কুল এবং ছোট ছেলে মেয়ে গুলো আপনার আমার সবার। এ বিষয়ে জিকেএমকে পাইলট স্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রবের সাথে কথা বললে তিনি বলেন ময়লার ব্যাপারে পৌরসভার সাথে কোন কথা হয়নি তবে এখানে ময়লা ফেলার কারনে সার্বিক পরিবেশ তো নষ্ট হচ্ছেই এর চেয়ে বেশী সমস্যা হচ্ছে ময়লা ফেলার গাড়ি এখানে পার্কিং করে রাখার কারনে। এ দিকে পৌরসভার ভার প্রাপ্ত মেয়র মাস্টার মনিরুল ইসলাম বুলবুলের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেনঃ এ ব্যাপারে আমার কোন ইন্ধন নেই, আমি হাজার বার ঐ স্কুলের পাশে এবং উপজেলা সংলগ্ন সাবেক সাংসদ হাবিব ভায়ের বাড়ির সামনে ময়লা ফেলতে নিশেধ করেছি তার পরে ময়লা ফেলছে। ঠিক আছে আমি এ ব্যাপারে ব্যবস্হা নেব।

Related Articles

Back to top button
Close