বগুড়ার-সংবাদসারিয়াকান্দি

সারিয়াকান্দি ফুটপাত দখল করে বাণিজ্য, চরম ভোগান্তিতে পথচারীরা

মোঃ জাহিদুল ইসলাম জাহিদ সারিয়াকান্দি (বগুড়া) প্রতিনিধি: বগুড়ার সারিয়াকান্দি ফুটপাত দখল করে চলছে বাণিজ্য। বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের দখলে রয়েছে সারিয়াকান্দি বাজার এলাকার প্রধান সড়ক ও সড়কের পাশের ফুটপাত।ফলে রাস্তায় চলতে গিয়ে চরম বিড়ম্বনায় পড়েন পথচারীরা।

ফুটপাত দখল মুক্ত করতে আইনের কঠর প্রয়োগ দাবি করেছেন সচেতন মহল। এক শ্রেণীর ব্যবসায়ী স্থানীয় প্রভাব খাটিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই ফুটপাত দখল করে চালিয়ে যাচ্ছে ব্যবসা বাণিজ্য। সারিয়াকান্দি সদরে তিনটি কিন্ডার গার্ডেন কেজি স্কুল, একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দুইটি উচ্চ বিদ্যালয়, একটি ফাজিল মাদ্রারাসা ও দুইটি কলেজ। এই সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাতায়াত কারী শিক্ষার্থীরা প্রতিনিয়ত বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে। এমনিতেই গাড়ীর চাপ তার ওপর ফুটপাত দখল। ব্যবসায়ীরা ফুটপাত দখল করে, রেখে দিয়েছে বিক্রয় সামগ্রী।

আবার কোন কোন স্থানে ফলের দোকান, চা বিক্রেতাদের চুলা, বিভিন্ন দোকানের সাইনবোর্ড, লেদ মালিকরাও ফুটপাত দখল করে চালিয়ে যাচ্ছে তাদের ব্যবসায়ীক কাজ। মুক্তিযোদ্ধা মোর নামে পরিচিত এলাকার চিত্র আরও ভয়াবহ। এই মোর থেকে মাছ বাজার হয়ে খাদ্য গুদামে যাতায়াতের সড়ক। এই সড়কে মাল পরিবহনের জন্য কোন ট্রাক প্রবেশ করলে পথচারীদের পারাপারের জায়গা থাকে না। তার পরেও আবার ফুটপাত দখল। সারিয়াকান্দি প্রধান সড়কের দুইধারে ব্যাটারী চালিত ছাদওয়ালা অটো, রিক্সা, ও ভ্যান ঘন্টার পর ঘন্টা সারিবন্ধ ভাবে দারিয়ে থেকে এই প্রধান সড়ককে শরু করে ফেলেছে।

একদিক থেকে একটি মিনি বাস বা ট্রাক প্রবেশ করলে বিপরীত দিক থেকে আসা বাস ট্রাক চালকের পার হয়ে যেতে হীমসিম খেতে হয়। এমতাবস্থায় যে কোন সময় ঘটতে পারে দুর্ঘটনা সহ আইন শৃঙ্খলা বিঘœকারী নানা ঘটনা। ফুটপাত বিষয়ে পৌর মেয়রের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে কথা বলা সম্ভব হইনি। ওয়ার্ড কমিশনার মুন্টু মিয়া বলেন, ফুটপাত জনগনের হাটাচলার জন্য কিন্তু জনগন সেই সুযোগ থেকে বঞ্চিত। মামুন তরফদারের সাথে কথা বলে জানা যায়, ইতি পূর্বে দুইবার ফুটপাত দখল মুক্ত করার উদ্দেগ্য গ্রহণ করলে স্থানীয় বিভিন্ন কারনেই সেই উদ্দেগ্য ব্যার্থ হয়। আগামীতে আমরা যে কোন সময় ফুটপাত দখল মুক্ত অভিযান পরিচালনা করতে পারি।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাসেল মিয়া বলেন, ফুটপাত দখল মুক্ত করা প্রয়োজন অবশ্যই উপজেলা প্রশাসন এই উদ্দেগ্য গ্রহণ করবে। সচেতন মহলের দাবি এখনি এই উদ্দেগ্য গ্রহণ না করলে যে কোন সময় ঘটতে পারে দুর্ঘটনা সহ আইন শৃঙ্খলা বিঘœ কারী নানা ঘটনা। যথাযথ কর্তৃক পক্ষের উচিত ফুটপাত দখল মুক্ত করে যারা ফুটপাত দখল করে ব্যবসা পরিচালনা করে যাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক।

Related Articles

Back to top button
Close