সোনাতলা'র সংবাদ

সোনাতলায় অন্যের জায়গায় প্রতিপক্ষের জোরপূর্বক ঘর নির্মাণ চেষ্টা ঃ সংঘর্ষের সম্ভাবনা

সোনাতলা (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ সোনাতলার জোড়গাছা ইউনিয়নের সোনাকানিয়া দক্ষিণ পাড়ায় পৈতৃক সম্পত্তিতে প্রতিপক্ষের জোরপূর্বক গৃহ নির্মাণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বেশ কয়েকবার শালিস বৈঠক হলেও মিমাংসা না হওয়ায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। যে কোন সময় সংঘর্ষ ঘটতে পারে।

সরেজমিনে সোনাকানিয়া গ্রামে গিয়ে জানা যায়, সোনাকানিয়া দক্ষিণপাড়া গ্রামে কেরামত আকন্দের পুত্র মন্টু আকন্দ তাঁদের কবলাকৃত ২৯ শতক জমিতে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছে। ওই জায়গার কিয়দংশ জায়গা নিয়ে আদালতে একই গ্রামের মৃত ছায়েদ আলী আকন্দের পুত্র আব্দুল মান্নান আকন্দের (নয়া) বাটোয়ারা মামলা আদালতে চলমান রয়েছে। এমতাবস্থায় কিছুদিন পূর্বে আদালতে মামলা থাকা সত্বেও আব্দুল মান্নান আকন্দ (নয়া) ওই স্থানে ঘর নির্মাণের চেষ্টা চালায়। এ নির্মাণ প্রচেষ্টাকে প্রতিহত করে জমির মূল দাবিদার মন্টু আকন্দের লোকজন। এ ঘটনায় গত ১৯ মে স্থানীয় গুড়াভাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জোড়গাছা ইউপির নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে শালিস বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু শালিসের রায়কে অমান্য করে আব্দুল মান্নান আকন্দসহ তার লোাকজন। একই বিষয়ে সোমবার দুপুরে সোনাতলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও সদর ইউপির চেয়ারম্যান মাহবুবুল আলম বুলুসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে আরেকটি শালিস অনুষ্ঠিত হলে সে শালিসকেও অমান্য করে আব্দুল মান্নান আকন্দ। এদিন উভয়পক্ষের লোকজনের উপস্থিতিতে উত্তপ্ত অবস্থার সৃষ্টি হয়। তাৎক্ষনিকভাবে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন সোনাতলা থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল মোতালেব। জোরপূর্বক গৃহ নির্মাণ চেষ্টার ঘটনায় ওই এলাকায় উত্তপ্ত অবস্থা বিরাজ করছে। যেকোন সময় সংঘর্ষের আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী। আব্দুল মান্নান নয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনিও জায়গাটি তার নিজের বলে দাবী করেন।এ ব্যাপারে থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল মোতালেব জানান, স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মিমাংসা না হলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close